fbpx
আমরা আছি সবসময় আপনাদের সাথে

লিভারপুল এর সালাহ দেখাল এভাবেও ফিরে আসা যায়।

0 93

গতকাল মনে মনে সবচেয়ে বেশি হিসাব কষতে হচ্ছিল লিভারপুলকেই। পিএসজি জিতলে কী হবে, হারলে কী হবে। তবে একটা সহজ জিনিস কিন্তু লিভারপুলের জন্য প্রস্তুতই ছিল। সেটি হচ্ছে নিজেদের জয়। জয় না পেলে চ্যাম্পিয়নস লিগের পরের পর্ব নিয়ে আর না ভাবলেও চলত তাদের। অন্যদিকে, সবচেয়ে সহজ সমীকরণ ছিল নাপোলির সামনে। শুধু একটি পয়েন্ট তাদের পরবর্তী পর্বে নেওয়ার জন্য যথেষ্ট ছিল। কিন্তু সহজ কাজটা করতে গিয়েই ফেঁসে গেলেন কার্লো আনচেলত্তির শিষ্যরা। লিভারপুলের কাছে ১-০ গোলে হেরে গ্রুপসেরা থেকে একেবারে বাদ হয়ে গেল নাপোলি।

লিভারপুল-নাপোলির এই ম্যাচ আসলে ছিল দুই কোচের কৌশলের লড়াই। লিভারপুলের ইয়ুর্গেন ক্লপ ও নাপোলির কার্লো আনচেলত্তি। কে কাকে নিজের ট্যাকটিসে বেঁধে রাখবেন, তাই ছিল দেখার বিষয়। তবে গতকালের সব আকর্ষণ কেড়ে নেন দুই গোলরক্ষক এলিসন বেকার ও ডেভিড ওসপিনা। পুরো ম্যাচে মাত্র একটি ভুলই করেছে নাপোলি। আর সেই ভুল কাজে লাগিয়েই লিভারপুলকে পরবর্তী পর্বে নিয়ে গেছেন মোহাম্মদ সালাহ।

এই সালাহই লিভারপুলকে এগিয়ে নিতে পারতেন ম্যাচের ষষ্ঠ মিনিটে। কিন্তু রবার্টসনের বাড়ানো বল ঠিকমতো পায়ে জড়াতে পারেননি সালাহ। কিন্তু দ্বিতীয় সুযোগ কাজে লাগাতে ভুল করেননি সালাহ। ৩৪ মিনিটে জেমস মিলনারের কাছ থেকে পাওয়া বল কোলাবালি ক্লিয়ার করতে পারেননি। বল পেয়ে যান সালাহ। গোলকিপারের পাশ দিয়ে বল জালে জড়ান সালাহ। এটি সালাহর এই মৌসুমে চ্যাম্পিয়নস লিগে তৃতীয় গোল।
দ্বিতীয়ার্ধে অনেক সুযোগ পেয়েছিল লিভারপুল আর নাপোলি। কিন্তু কেউই সেই সুযোগের সদ্ব্যবহার করতে পারেনি। আরও স্পষ্ট করে বললে সুযোগের সদ্ব্যবহার করতে দেয়নি দুই দলের গোলরক্ষকেরা। ম্যাচের শেষ দিকে সাদিও মানের দুটি নিশ্চিত গোল নস্যাৎ করে দেন ওসপিনা। আর শেষ মিনিটে লিভারপুল দর্শকদের অন্তরাত্মা কাঁপিয়ে দিয়েছিলেন মিলিক। কায়েহনের বাড়ানো ক্রস থামাতে পারেননি লিভারপুলের রক্ষণ। বরং তা সরাসরি যায় মিলিকের পায়ে। কিন্তু মিল্কের শট অসাধারণভাবে থামিয়ে দিলেন এলিসন। সে সময় গোল হলে ম্যাচে ফেরার কোনো সম্ভাবনাই থাকত না লিভারপুলের। মিলিকের শট যেভাবে এলিসন থামিয়ে দিলেন, তার জন্য যেকোনো প্রশংসাও কম হয়ে যায়। কোচ ক্লপ তো বলেই ফেললেন, ‘এলিসনকে যদি তার দুই গুণ দাম দিয়েও কেনা লাগত, তবে আমি আফসোস করতাম না।’

‘গ্রুপ সি’ থেকে প্রথম হয়ে দ্বিতীয় পর্বে উঠেছে প্যারিস সেন্ট জার্মেই। ১১ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপের শীর্ষে তারা। দ্বিতীয় ও তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে লিভারপুল ও নাপোলি। দুজনের পয়েন্ট সমান ৯। এমনকি গোল ব্যবধানও এক (+২)। প্রতিপক্ষের মাঠে গিয়েও দুই দল সমান ব্যবধানে হেরেছে। শেষ পর্যন্ত গ্রুপের দ্বিতীয় স্থানটি ঠিক হলো দুই দলের মধ্যে যারা বেশি গোল করেছে, সেটি দিয়েই। লিভারপুল এই মৌসুমে করেছে ৯ গোল, আর হজম করেছে ৭টি। কিন্তু এখানে পিছিয়ে নাপোলি। তারা ৭ গোল দিয়ে হজম করেছে ৫টি। কম গোল করার কারণে শেষ পর্যন্ত দ্বিতীয় পর্বে যাওয়ার দৌড়ে বাদ পড়ল নাপোলি। পাঁচ ম্যাচ শেষেও যে লিভারপুল গ্রুপে তৃতীয় ছিল, দ্বিতীয় পর্বে উঠে তারা প্রমাণ করলে লক্ষ্যটা স্থির থাকলে সেটি ভেদ করা কোনো ব্যাপারই নয়।

- Advertisement -

Leave A Reply

Your email address will not be published.